ভুয়ো রিপোর্ট প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরিতে , ধৃত ১

উত্তম মাইতি, পূর্ব মেদিনীপুর : চিকিৎসকের নির্দেশ মতো রক্ত পরীক্ষা করাতে কাঁথির বেসরকারি একটি ল্যাবরেটরিতে আজ দুপুরে গিয়েছিলেন বৃদ্ধ বৃদ্ধা দম্পতি। রক্ত নেওয়া হয়ে গেলেও কখন রিপোর্ট পাবে এই নিয়ে স্পষ্ট করছিলনা পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথির সুরক্ষা প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরির কর্মীরা। দেরি হলে ডাক্তার চেম্বার থেকে উঠে যাবেন। তাই আগে রিপোর্ট চেয়েছিলেন দম্পতি। আর তা চাইতে গেলেই বেজাই রেগে যান ল্যাবরেটরির এক কর্মী বাচ্চু খান। রিপোর্ট আগে চাওয়ার অপরাধে এক কর্মী গায়ে পড়ে রেগে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ দিতে থাকেন দম্পতি রেখা পানিগ্রাহী ও স্বামী অমলেন্দু পানিগ্রাহীকে। তা প্রতিবাদ করতে গেলেই রোগিনী কে ধরে প্রকাশ্যে রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ।চুলের মুঠি ধরে টানতে টানতে রাস্তায় নিয়ে যায়। অভিযোগ মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন ল্যাবরেটরি কর্মী বাচ্চু খান। চুলের মুঠি ধরে পেটে পিঠে লাথি মারার ও অভিযোগ দালালের বিরুদ্ধে।স্বামী ছাড়াতে গেলে তাকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। অভিযোগ এমন মারধর করার সময় ল্যাবরেটরির মালিকও মারধরে উসকানি দেয়। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ল্যাবরেটরির মালিক। দম্পতি থানায় অভিযোগ জানানোর কথা বললে, উত্তেজিত কর্মী বাচ্চু মারধর করার পর কাঁথি থানায় ছুটে যান পুলিশকে সাবধান করতে। যথারীতি থানায় গিয়ে এক কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিককে ধমকের সুরে দম্পতির অভিযোগ না নেওয়ার কথা বলতে যেতেই পুলিশ বাচ্চুকে আটক করে নেয় ।পরে দম্পতির অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে ।

অপরদিকে এমন ঘটনায় ল্যাবরেটরির মালিক কমল মণ্ডল জেরার মুখে পড়ে স্বীকার করেন ল্যাবরেটরি পরীক্ষক আদৌ থাকেন না ল্যাবে।সূত্রের খবর, খালি প্যাডে ডাক্তারের স্বাক্ষর করে রাখা হয়েছে এমন বহু রিপোর্ট প্যাড রয়েছে এই ল্যাবে। ভূ্য়ো ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার পর ঐ স্বাক্ষর করা প্যাডে প্রিন্ট নেওয়া হয়। উঠছে দালাল চক্রের অভিযোগ। আর এই সব কিছুই খতিয়ে দেখছে পুলিশ প্রশাসন ।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *