চলে গেলেন এ যুগের শাহজাহান, স্ত্রীকে কথা দিয়ে বানিয়েছিলেন তাজমহল

দেশ ও এই সময় নিউজ ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের বুলন্দ শহরের অবসরপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার ফয়জুল হাসান কাদরি সাহেব আর নেই৷ সড়ক দুর্ঘটার শিকার হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

নিজের স্ত্রীর মৃত্যুর পর তাঁর ভালোবাসা আজীবন ধরে রাখতে শাহজাহানের মতো করে এক ‘মিনি তাজমহল’ নির্মাণ করার অঙ্গীকার করেছিলেন তিনি ।

মাত্র ১৪ বছর কাদরি সাহেব বিয়ে করেছিলেন তাজামুল্লি বেগমকে। তাঁরা ছিলেন নিঃসন্তান। ২০১১ সালে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান প্রিয়তমা স্ত্রী।

মৃত্যুর সময়ে দুঃখ প্রকাশ করে তাঁর স্বামী ফয়জুলকে তাজামুল্লি বলেছিলেন, তাদের নাম বহন করার মতো কেউ নেই, নেই কোনো স্মৃতি। আর সেদিনই ফয়জুল অঙ্গীকার করেছিলেন, নিঃসন্তান প্রেমের দুঃখ ঘোচাতে তিনি তৈরি করবেন এক ‘মিনি তাজমহল’।

পেনশনের টাকা দিয়ে তাজমহল নির্মাণের কাজ শুরু করেন তিনি । এজন্য নিজের জমি জমা ও বিক্রি করতে হয়েছে । তাঁর তাজমহলের কাজ এখন প্রায় শেষ হওয়ার পথে। এ যাবৎ সর্বমোট এগারো লক্ষ টাকা খরচ করে ফেলেছিলেন । এবার শুধু মার্বেল লাগানোর কাজ বাকি। তাতে লাগাবে প্রায় সাত লক্ষ টাকার ও বেশি । সেটাও তিনি ব্যবস্থা করে ফেলেছিলেন ।

ফয়জুল সাহেব এতে কারও থেকে দানের এক টাকাও তিনি তাঁর তাজমহলে লাগাবেন না বলে অঙ্গীকার করে ছিলেন ।

সাংবাদিকদের সাথে কথা প্রসঙ্গে ফয়জুল সাহেব জানিয়েছিলেন , “আমার স্ত্রীর মৃত্যুর পর তাঁর কফিন পর্যন্ত আমি নিজে কিনে এনেছি৷” এখানেই শেষ নয়, তাজমহলের পাশে একটি সরকারি বালিকা বিদ্যালয় নির্মাণের জন্য জমিও দান করেছেন তিনি।

কিন্তু নিয়তির নিষ্টুর পরিহাস। গত বৃহস্পতিবার এক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশাস ত্যাগ করেন তিনি ৷
ফয়জুল হাসান সাহেবের মিনি তাজমহলের স্বপ্ন অধরা হয়ে রইলেও তাঁর প্রেম কিন্তু সার্থক ।
কর্মজীবন থেকে ফয়জুল সাহেব অবসর নিলেও ‘অবসর’ শব্দটা যেন বেমানান হয়েই রইলো তার প্রতি৷

সারাদিনে যেটুকু সময় পেতেন তার বেশিরভাগই ব্যয় করতেন ‘মিনি তাজমহলের’ কাজ তদারকি করতে, স্ত্রীর স্মৃতি এই তিরাশি বছর বয়সেও তাঁকে যেন তেইশ বছরের যুবকের মতো কাজ করতে প্রেরণা জুগিয়েছিল।

এবার যেন চিরতরে অবসর নিলেন তিনি । স্ত্রীর ভালোবাসায় তিনি গড়ে তুলেছেন তাঁর স্বপ্নের তাজমহল। তাঁর এই তাজ মহল পৃথিবীর আশ্চর্যের তালিকায় স্থান হয়ত পাবে না তবে এই মিনি তাজমহল এর প্রতিটি গাঁথুনি বহন করে চলেছে এই স্বর্গীয় ভালোবাসার সাক্ষ্য৷

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *