কুশমন্ডিতে অভিষেকের জনসভায় জনজোয়ার

মঞ্জুরুল অালম,দক্ষিণ দিনাজপুর, :- দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুশমন্ডি ব্লকের হাড়াহার ঈদগাহ সংলগ্ন ১০ নং রাজ্য সড়কের পূর্ব প্রান্ত মাঠে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সমর্থনে অাজ অভিষেকের জনসভার কাজ ১ টা ৩০ মিনিটে শুরু হয়। ওই সভা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়,মন্ত্রী বাচ্চু হাসদা,তৃনমূলের জেলা যুব কার্যকারী সভাপতি অম্বরিশ সরকার, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদের সদস্য সুনির্মল জ্যোতি বিশ্বাস, তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র, প্রাক্তন কারা মন্ত্রী শঙ্কর চক্রবর্তী, তৃনমুলের রাজ্য ছাত্র সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য, কুশমন্ডি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুনন্দা বিশ্বাস, কুশমন্ডি ব্লক সভাপতি রেখা রায় ও প্রার্থী সহ কুশমন্ডি ব্লকের অন্যান্য নেতৃত্বরা।

জনসভায় লোক ধরে রাখতে রাজ্য তৃণমূল ছাত্র নেতা তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য তার বক্তব্যে তিনি মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরেন এবং বিজেপির বিরুদ্ধে “চৌকিদার চোর হ্যাঁ” বলে মঞ্চ থেকে স্লোগান তোলেন এবং অর্পিতা দেবীকে জোড়া ফুল চিহ্নে ভোট দেওয়ার অাহ্বান জানান।

পরবর্তী বক্তা অর্পিতা দেবী তার সংক্ষিপ্ত ভাষনে মমতা ব্যানার্জী ও তার উন্নয়নের নানান দিক তুলে ধরে, বিজেপিকে কটাক্ষ করে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে নানা সমালোচনা করেন। তিনি অারোও বলেন, এবারের লোকসভা ভোট খুবই গুরুত্বপূর্ণ তাই সকাল সকাল জোড়াফুল চিহ্নে ভোট দিয়ে পুনরায় জয়যুক্ত করার অাহ্বান জানান জনসভায় উপস্থিত কর্মী সমর্থকদের কাছে।

দীর্ঘ অপেক্ষার পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নীল-হলুদ হেলিকপ্টারে চেপে সভাস্থলে পৌঁছান ৩ টার সময় এবং তাকে মঞ্চে বরণ করে নেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূল জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র। অভিষেকের এই জনসভাকে কেন্দ্র করে ছিল কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অভিষেকের জনসভার নিরাপত্তা এতোটাই অাটোসাটো ছিল যে কার্যত সংবাদ প্রতিনিধিদের ঢোকার অনুমতি পত্র থাকা সত্বেয় সভাস্থলে প্রবেশের সময় সার্চ করে ঢোকানো হয়।

সপ্তদশ লোকসভা ভোট যতই এগিয়ে অাসছে ততই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্যে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে সুর চড়া করলেন। বেশি সময়টাই নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে তার বক্তব্য ব্যয় করেন এই জনসভায়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের কর্মসূচী বেশি করে বলতেন, এই সভাতে বলেননি যে তা নয়? কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদীর প্রতিশ্রুতির বিরুদ্ধেও তির্যক ভাষায় অাক্রমণ করেন। সিপিএম ও কংগ্রেসের সমালোচনা ও ছিল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিশানায়। তার বক্তব্যে তিনি সংবাদ মাধ্যমের সমীক্ষাকে সমালোচনা করে বলেন তাদের কোনো সমীক্ষা মিলবেনা। তাছাড়া কাশ্মীরের পুলওয়ামা কান্ড নিয়ে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের ব্যর্থতা বলে উল্লেখ করেন। তিনি অারোও বলেন বিজেপি সরকার কৃষকদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে কারন এই বিজেপি সরকার ভোটের অাগে রান্নার গ্যাসের দাম কমায় ও ভোটের পরে রান্নার গ্যাসের দাম বাড়ায়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৩১ মিনিটের ভাষনে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাবাসীর জন্য কোনো প্রতিশ্রুতির কথা তুলে ধরেননি। বক্তব্য শেষে জনসভায় উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, পূনরায় অর্পিতা দেবীকে জিতিয়ে মমতা ব্যানার্জীর হাত শক্ত করুন কারন কেন্দ্রে সরকার গড়তে এবার তৃণমূলের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

দেখুন নিচের লিংকে ক্লিক করে

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *