পরীক্ষা ছাড়াই ডাক্তারের ওস্তাদি, জানতে ক্লিক করুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, বসিরহাট: উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাদুড়িয়া থানার অন্তর্গত বাগজোলাতে একটি শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের তত্ত্বাবধানে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছেI রক্ত নেওয়ার জন্য “মারওয়ারি রেলিফ সোসাইটি” ২২৭, রবীন্দ্র সরণি কলকাতা-৭ থেকে রক্ত নেয়ার জন্য ডাক্তারদের একটি বিশেষ দল আসেন | এখানে ৮২ জন স্বেচ্ছায় রক্ত দান করেন৷ তার মধ্যে ৯ জন মহিলা , আশ্চর্য বিষয় “মারওয়ারি রেলিফ সোসাইটি” নামে এই সংস্থাটি স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের ব্লাড প্রেসার ও হার্ট বিট মেপে দেখছেন কিন্তু হিমোগ্লোবিন চেকিং না করেই ডোনার রেজিস্ট্রেশন কার্ড এ ছেলেদের ক্ষেত্রে ১২.৫ ও মেয়েদের ক্ষেত্রে ১১.৫ লিখছেন । সে ক্ষেত্রে এই বিষয় নিয়ে সংশ্লিষ্ট ডাক্তারের সাথে কথা বললে তিনি জানান হিমোগ্লোবিন চেকিং না করেই আনুমানিক ভাবে চোখের তলা দেখেই ছেলেদের ক্ষেত্রে ১২.৫ ও মেয়েদের ক্ষেত্রে ১১.৫ লিখছেন ৷

প্রশ্ন উঠেছে ডাক্তাররা কিভাবে অনুমান করতে পারলেন যে স্বেচ্ছায় রক্তদাতা রক্ত দিচ্ছে তার হিমোগ্লোবিন ১২.৫ বা ১১.৫ আছে ? যেটা তিনি সম্পূর্ণ অনুমানের ভিত্তিতে লিখছেন যা ডাক্তারি শাস্ত্রে কখনই লেখা উচিত নয় ৷ এ বিষয়ে বাদুড়িয়া গ্রামীণ হাসপাতালে বি এম ও এইচ কে প্রশ্ন করলে তিনি জানান হিমোগ্লোবিন টেস্ট না করে কার শরীরে কত পারসেন্ট হিমোগ্লোবিন আছে তা লেখা সম্ভব নয় | এইভাবে ডাক্তারি শাস্ত্রের বিপক্ষে গিয়ে গড়ে ১২.৫ ও ১১.৫ লেখা উচিত নয় এটি সম্পূর্ণ অবৈধ I এই বিষয় নিয়ে বিভিন্ন মহলে উঠছে প্রশ্ন কিভাবে “মাড়োয়ারি রিলিফ সোসাইটির” ডাক্তাররা এইভাবে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা অনুমানের ভিত্তিতে লিখছেন। এ নিয়ে উঠছে বড় ধরনের প্রশ্ন।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *