শান্তিপুরে় বিষ মদে মৃত্যুর সংখ্যা ১১, তদন্তে CID

নিজস্ব সংবাদদাতা, নদিয়া:
সংগ্রামপুর এর পর এবার নদিয়া জেলার শান্তিপুর এ মৃত্যু হল ১১জনের। পুলিশ তদন্তে নেমে ইতিমধ্যে একাধিক জনকে গ্রেপ্তার করেছে। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় চন্দন নামে এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে এই মদ বিক্রি হয় সচরাচর এই মদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছে শ্রমজীবী মানুষের। কেউ ইটভাটায় কাজ করে ,কেউ জনমজুর খাটে তাদের মৃত্যু হয়েছে বিষ মদে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন যে সকাল বেলা খালি পেটে অনেকে এই চোলাই মদ খেয়ে কাজে বেরোয়, আবার কাজ শেষে সন্ধ্যেবেলায় বিনোদন বলতে চোলাই মদ খাওয়া এলাকার এই সকল শ্রমজীবি মানুষের কাছে বাড়তি পাওনা বলেই স্থানীয় শুভবুদ্ধি মানুষদের অভিযোগ। বিষমদ কাণ্ডে মৃত ১১। এলাকায় শোকের ছায়া তদন্ত শুরু করেছে সিআইডি। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অসীম মিত্র মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা দেবে বলে ঘোষণা করেছেন। অমিত মিত্র আরও জানিয়েছেন যে এই সমস্ত মদ অন্য রাজ্য থেকে এখানে আসে বিহার সহ বেশ কিছু রাজ্যের কথা তিনি উল্লেখ করেছেন।
এছাড়াও এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আবগারি দফতরের মোট ১২ জন কর্মী আধিকারিককে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে সাসপেন্ড করা হয়েছে এর মধ্যে রয়েছেন আফগানি দপ্তরের শান্তিপুর সার্কেলের ইনেসপেক্টর এবং ৮ জন কনস্টেবল এবং রানাঘাট রেঞ্জ এর ডেপুটি কালেক্টর কেউ সাসপেন্ড করা হয়েছে। নদীয়া জেলার শান্তিপুর এর নৃসিংহপুর চৌধুরীপাড়ার চোলাই মদ খেয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘিরে অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ উঠেছে এলাকায়। জেলাজুড়ে উঠেছে অনেক প্রশ্ন।
অনেকের অভিযোগ যে এখন এই ধরনের মদ মুদিখানা দোকানে পাওয়া যাচ্ছে।
অভিযোগ যে পুলিশ প্রশাসনিক কর্তা ব্যাক্তিরা জেনেশুনেও এই সমস্ত চোরাকারবারিদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয় না ।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *