বাড়ির উঠোনে চিতা সাজিয়ে গৃহবধূকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টা, মৃত গৃহবধূ

দেবাশীষ পাল, মালদাঃ রাজ্যে সরকারথেকে শুরু করে প্রধান মন্ত্রী বেটি বাচাও বেটি পড়াও প্রচার ব্যর্থ । তিনবার কন্যা সন্তান হওয়ায় বাড়ির উঠোনে চিতা সাজিয়ে গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টার গৃহবধুর স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে। অবশেষে সোমবার চিকিৎসাচলাকালিন অ হাসপাতালেইমৃত্যু হয় ওই গৃহবধু ।প্রায় গত ১২ বছর আগে হবিবপুরের তিলাসন গ্রামের বাসিন্দা পেশায় ট্যাক্সিচালক টগর ভুঁইমালির সঙ্গে বিয়ে হয় মনিকার। বিয়ের পর থেকে পরপর তিনবার কন্যা সন্তানহয়েছিল হবিবপুর থানার আদিবাসী অধ্যুষিত ধুমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তিলাসন গ্রামের গৃহবধূ মনিকা ভুঁইমালির। শ্বশুরব বাড়ির দাবি মতো ওই গৃহবধূ দিতে পারেনি কোন পুত্র সন্তানের জন্ম বলে অভিযোগ। আর সেই কারণেই গত বুধবার বাড়ির উঠোনে চিতা সাজিয়ে গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছিল তার স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে। রাতেই স্থানীয় গ্রামবাসীরা সংকটজনক অবস্থায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। সেখানেই মৃত্যুর সাথে লড়াই করছিল মনিকা। অবশেষে সোমবার তার মৃত্যু হয়।ঘটনায় স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় হবিবপুর থানায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *