সাপ মারায় রাজ্যে প্রথম গ্রেফতার

ফেসবুক পোস্ট

সৈকত সেন, জলপাইগুড়ি: এই প্রথম রাজ্যের কোনো ব্যাক্তি বনপ্রান হত্যার দায়ে গ্রেফতার হলেন। জলপাইগুড়ি জেলা থেকে রাজ্যের প্রথম সাপ মারার অপরাধে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করলেন বিন্নাগুড়ি ওয়াইল্ড লাইফের রেঞ্জার জলধর রায়। ঘটনাটি ঘটেছে ধুপগুড়ি পৌর এলাকার ১০ নং ওয়ার্ডের ঘোষ পাড়া এলাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান ঐ এলাকার নান্টু ঘোষ (৫৭) গতকাল সন্ধ্যা নাগাদ পাড়ার রাস্তায় এবং তার ঘরের পাশে তিনটি গোখরো সাপ লাঠি দিয়ে আঘাত করে মারেন। এছাড়াও অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে এর আগেও সাপ মারার অভিযোগ করেন প্রতিবেশীরা। গতকাল এই ঘটনার পর প্রতিবেশী এক ছেলে এই সাপ মারার ঘটনাটি ফেসবুকে পোস্ট করেন তার ফলে সেই পোস্টটি ভাইরাল হতে শুরু করে এবং অনেকেই সেই পোস্টের অভিযুক্ত ব্যক্তির শাস্তির দাবি জানায়।
এরপর আজ সন্ধ্যায় বিন্নাগুড়ি লাইফ ওয়াইল্ড রেঞ্জার জলধর রায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বাড়িতে আসেন । জিজ্ঞাসাবাদের পর অভিযুক্ত ব্যক্তি নান্টু ঘোষ তার দোষ স্বীকার করেন। অফিসারকে জানান প্রাণের ভয়েই তিনি সেই সাপ তিনটি কে মেরে হাইড্রেনে ফেলে দেন। এরপর রেঞ্জার অফিসার মৃত তিনটি গোখরো সাপকে হাই ড্রেন থেকে উদ্ধার করে পোস্টমর্টেমের জন্য নিয়ে যান। এছাড়াও অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হয়।
এই বিষয়ে ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির কোচবিহার আঞ্চলিক কমিটির সম্পাদক বরুণ সাহাকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন “ আমরা আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ধারাবাহিক ভাবে সমগ্র উত্তরবঙ্গ জুড়ে সাপ নিয়ে সচেতনতা মূলক প্রচারাভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। পাশাপাশি সাধারণ মানুষের কাছে বার্তা দিচ্ছি অকারণে কেউ সাপ মারবেন না। আমাদের জানান আমরা বনদপ্তরের সহযোগিতায় সাপটিকে উদ্ধার করে জঙ্গলে ছেড়ে দেবো। আজকে তিনটি গোখরো মেরে ফেলা এটা ভিষন খারাপ কাজ হয়েছে। সাপ আমাদের পরিবেশের বাস্তুতন্ত্র ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি জীব। সাপ মেরে ফেলার জন্য রাজ্যে এই প্রথম কেউ গ্রেফতার হলেন মূলত এটা আমাদের সংগঠনের দীর্ঘদিনের প্রচার আন্দোলনের ফল।”

ভিডিও:

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *