একই পরিবারের ৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু

সৈয়দ রেজওয়ানুল হাবিবঃ সাত বছরের শিশু বাচ্চা সহ একই পরিবারের ৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু স্বরুপনগরে।আজ ৩রা জানুয়ারি ভোর ৪.৩০ নাগাদ বিজয় চ্যাটার্জী (৪৫) কাজের জন্য বাড়ি থেকে বাহির হয়ে রাস্তার উঠার আগে পা বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পরে, ঘর থেকে অসুস্থ স্ত্রী অতসী ব্যানার্জি (৩৯) স্বামীর দেহ স্পর্শ করলে সেও একই পরিস্থিতির শিকার হয়, এবং ঘটনাস্থলে মারা যায়। বাবা-মায়ের মৃতদেহ দেখে সাত বছরের তনুশ্রী চ্যাটার্জি ছুটে যায় এবং মায়ের শরীরে হাত দিলে তারও একই অবস্থা হয়। তনুশ্রীও বনশ্রী-তারা যমজ দুই বোন | বনশ্রী এই দৃশ্য-দেখে অবশেষে চিৎকার করে কাঁদতে থাকে তার কান্নাকাটি শব্দ শুনে পাশের বাড়ির লোকজন জেগে ওঠে এবং সাথে সাথে কচি কন্ঠে আওয়াজ শুনে ঘটনাস্থলে এসে তাকে বাধা দেয়৷ একই পরিবারে তিনজনের মৃত্যু দেহ ময়নাতদন্তের জন্য বসিরহাট হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে । খবর জানাজানি হতেই স্থানীয় জনপ্রতিনিধি রূপকুমার সরকার ঘটনাস্থলে আসেন এবং থানাসহ ভিডিও এবং বিদ্যুতের আধিকারিককে ঘটনা অবহিত করলে সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরের আধিকারিকগন ঘটনাস্থলে আসেন | সরকারী নিয়ম মেনেইঐপরিবারের ৭ বছরেরবনশ্রীর সাথে থাকবে বলে জানান ।ওই সাত বছরের শিশুর নিজের বলেকেহ থাকলো না। স্থানীয়দের আবেদন শিশুটিকে সরকারীভাবে হোমেপাঠানো যায় কিনা জান তে চাইলে বিডিওবিপ্লব বিশ্বাস এ বিষয়ে সব রকম সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দেন ৷তারা জানান সীমান্ত লাগোয়া গ্রাম গাবোর্ডা,যেখানে যেতে গেলেসীমান্তরক্ষীদের বিভিন্ন রকম প্রশ্নের জবাব দিয়ে প্রবেশ করতে হয় ৷তারা যেন ভারতীয় মাটিতে থেকেও পরবাসী আর সেজন্যই বিদ্যুত সহ নানা রকম মৌলিক অধিকার থেকে তারা বঞ্চিত৷ আজ একই পরিবারের ৩ জনের জীবন দিয়ে তার প্রমাণ করতে হলো সীমান্তবাসীর।স্থানীয়রা জানান ২০১১ সালে গ্রামে বিদ্যুৎ ঢোকে।অদ্যবধি ঝুলানো বিদ্যুতের তারের কোন পরিবর্তন করা হয় নি।যে তার ছিড়েপড়ায় আজ এই করুন পরিনতী।সরাগ্রামে শোকের ছায়া বিরাজ,করছে।ঘটনাস্থলে স্বরূপনগর থানার সি.আই সহ ওসি হাজির হন।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *