প্রয়াত দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়

প্রয়াত হলেন প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর বর্ষীয়ান এই শিল্পী সোমবার তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

শিল্পীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘আমি শোকস্তব্ধ। দ্বিজেনদা আর নেই। বাংলার সঙ্গীতজগতে ইন্দ্রপতন হল। দুঃখপ্রকাশ করার ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। স্বজন হারানোর বেদনা অনুভব করছি।’’

বেশ কয়েক মাস ধরে কিডনির রোগে ভুগছিলেন বাংলা গানের প্রবাদপ্রতীম শিল্পী দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়। এদিন তাঁর সল্টলেকের বাড়িতে তাঁর প্রয়াণ হয়। গত সেপ্টেম্বরেও ফুসফুসে সংক্রমণ নিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল। তার পর থেকে নিয়মিত ডাক্তারদের পর্যবেক্ষণে ছিলেন তিনি। এদিন বেলা পৌনে দুটো নাগাদ তিনি প্রয়াত হন। তাঁর প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমে এসেছে গোটা বাংলায়।

আধুনিক ও জনপ্রিয় বাংলা গানের কিংবদন্তী নাম তিনি। শুধু বাংলাতেই নয়, হিন্দিতেও বহু গান গেয়েছেন। তাঁর সমান কদর এপার বাংলা ও ওপার বাংলায়। সলিল চৌধুরির সুরে শিল্পীর কালজয়ী কিছু গান চিরকাল অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। অল ইন্ডিয়া রেডিয়োর মহালয়া অনুষ্ঠান ‘মহিষাসুরমর্দিনী’-তে তাঁর কন্ঠের বিখ্যাত গান ‘জাগো দুর্গা’ ভোলার নয়।

শুনুন সেই কালজয়ী গান

দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়ের জন্ম ১৯২৭ সালের ১২ নভেম্বর। পেশাদার গায়ক হিসেবে দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়ের ক্যারিয়ার শুরু হয় ১৯৪৪ সালে। মেগাফোন রেকর্ড কোম্পানি থেকে প্রথম গান রেকর্ড করেন ১৯৪৫ সালে। প্রায় দেড় হাজার গান তিনি রেকর্ড করেছেন। এর মধ্যে রবীন্দ্রসংগীত ৮০০। কিংবদন্তি সংগীতব্যক্তিত্ব সলিল চৌধুরীর সঙ্গে জুটি বেঁধে একের পর এক অনবদ্য সৃষ্টি এবং গণনাট্য সংঘের হয়ে কাজ করেছেন তিনি। সুশান্ত লাহিড়ী, পঙ্কজ মল্লিক, শান্তিদেব ঘোষের মতো ব্যক্তিত্বদের সান্নিধ্য দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়কে পৌঁছে দেয় অন্য উচ্চতায়। রবীন্দ্রসংগীত তো বটেই, বাংলা গানের জগতেও তিনি বরাবরই ছিলেন অনন্য।

সারা জীবনে ১৫০০-এরও বেশি গান রেকর্ড করেছেন। তার মধ্যে প্রায় ৮০০ গানই রবীন্দ্রসঙ্গীত। ২০১০ সালে পদ্মভূষণ সম্মানে ভূষিত হন। ২০১১ সালে তাঁকে দেওয়া হয় বঙ্গবিভূষণ সম্মান। তাঁর স্মৃতির উদ্দেশে শ্রদ্ধা রইল আমাদের তরফেও। ২০১০ সালে বাংলাদেশ সরকার দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়কে বঙ্গবন্ধু সম্মানে সম্মানিত করে।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *