যুবককে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারল প্রেমিকার পরিবার

দিপালী দেবনাথ (বাগ),পূর্ব মেদিনীপুর : প্রতিবেশী কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে প্রেম করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে যায় যুবক। আর সেই আক্রোশেই যুবককে রাতভর পেটানোর পর তার গায়ে পেট্রোল ছিটিয়ে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারল প্রেমিকার পরিবার।

নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের ভুপতিনগর থানার খাঁনজাতাপুর গ্রামে। মৃত যুবকটির নাম রঞ্জিত মন্ডল (২১)। শনিবার ভোর রাতে ছেলেটিকে দাউদাউ করে আগুনে পুড়তে থাকার খবর পেয়ে ছুটে আসে ভুপতিনগর থানার পুলিশ। এরপর জল ছিটিয়ে আগুন নেভানোর পর তাঁর আধপোড়া দেহ উদ্ধার হয়েছে।

এই ঘটনায় প্রেমিক সায়নী মন্ডল (১৯) সহ তাঁর পরিবারের মোট ৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। সাম্প্রতিক সময়ে এমন নৃশংস ঘটনা এলাকায় কোথাও ঘটেছে বলে মনে করতে পারছেন না তদন্তকারীরাও।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভুপতিনগর দক্ষিণ বায়েনদা গ্রামের বাসিন্দা রঞ্জিতের মা দীর্ঘদিন হল গত হয়েছেন। তারপর তাঁর বাবা দ্বিতীয়বার বিয়ে করে। এরপর থেকেই ছেলেটি খাঁনজাতাপুরে তাঁর মামাবাড়িতে এসে ওঠে।

ইতিমধ্যে মামাবাড়ির সামান্য দূরে থাকা সায়নীর সঙ্গে আলাপ হয় রঞ্জিতের। সেই আলাপ ধীরে ধীরে প্রেমে পরিণতি পায়। বেশ কয়েক বছর ধরে সবার চোখের আড়ালে চলতে থাকে তাঁদের মেলামেশা। বর্তমানে মেয়েটি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। আর ছেলেটি দিল্লীতে সোনার কাজ করে।

দিন চারেক আগে দিল্লী থেকে মামা বাড়িতে ফেরে ছেলেটি। শুক্রবার রাতে মেয়েটি তাঁকে ফোন করে দেখা করতে বলে। রাতে খাওয়া দাওয়ার পর সবাই ঘুমিয়ে গেলে ছেলেটি সবার অগোচরে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়ে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করতে যায়।

সেই সময় তাঁদের দু’জনকে হাতেনাতে ধরে ফেলে মেয়েটির পরিবার। শুরু হয় গণধোলাই। ধীরে ধীরে ছেলেটি নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাঁকে টেনে পাশের ঝোপের কাছে নিয়ে গিয়ে গায়ে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

ঘটনাটি জানতে পেরেই স্থানীয়রা ভুপতিনগর থানায় খবর দেয়। পুলিশ এসে জল ছিটিয়ে দীর্ঘ চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। এরপর আধপোড়া দেহটিকে উদ্ধার করে কাঁথি হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। সেই সঙ্গে মেয়েটির পরিবারের ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *