দেওরের হাতে বৌদি খুন

দেবু সিংহ ,মালদা ৩০ এপ্রিল : সম্পত্তি নিয়ে গোলমালের জেরে দিনের বেলায় নৃশংস ভাবে বৌদির হাত ,পা ও গলাকেটে খুন করার অভিযোগ উঠল দেওরের বিরুদ্ধে । রক্তমাখা অস্ত্র নিয়ে অভিযুক্ত দেওর খুন করার পর থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করলো। মঙ্গলবার সকালে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার হলদিবাড়ি গ্রামে । পুলিশ এই ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করার পর খুনের মামলা রুজু করেছে। পুরো ঘটনায় মৃত গৃহবধুর স্বামী সাগর দাস তার ভাই মতিলাল দাস ওরফে বধুয়ার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , মৃত গৃহবধূর নাম সঞ্জুমনি দাস (৩০) । ওই বধুর ডান হাত এবং পা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেয় অভিযুক্ত দেওর মতিলাল দাস। এমনকি গলাও কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে । সাত সকালে এমন নৃশংস হত্যার ঘটনায় গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। ক্ষুব্দ গ্রামবাসীরা অভিযুক্তের ঘর ভাঙচুর করে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

পুলিশকে অভিযোগে মৃতের স্বামী সাগর দাস জানিয়েছেন , তার বাবার বেশ কিছু জমি জায়গা রয়েছে । আর এই সম্পত্তির ভাগাভাগি নিয়ে তার ভাই মতিলাল দাসের সাথে কয়েক মাস ধরে গোলমাল চলছিল। এমনকি বিষয়টি থানা পর্যন্ত গড়ায়। কয়েকবার দুই ভাইয়ের মধ্যে হাতাহাতিও হয়েছে। কিন্তু তারপরও তাদের ঝামেলা মিটে যায় নি । নিত্যদিনের এই ঝামেলায় মেটাতে গ্রামবাসীদের আলোচনার জন্য ডাকা হয়েছিল ।কিন্তু তার আগেই অভিযুক্ত ভাই যে এইভাবে খুন করে ফেলবে তা ভাবতেই পারেন নি সাগর বাবু।

পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মৃতের স্বামী সাগর দাস জানিয়েছেন , এদিন সকালে তিনি কাজে বেরিয়ে ছিলেন । বাড়িতে একাই তার স্ত্রী ছিলেন । কিন্তু বেড়াবার আগেই ফের ভাইয়ের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে গোলমাল হয়। আর সেই গোলমালের প্রতিশোধ নিতেই স্ত্রীকে নি

নৃশংস ভাবে খুন করে অভিযুক্ত মতিলাল দাস।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিবাদ চলছিল। এদিন ওই সম্পত্তি নিয়ে বিবাদ চরমে পৌঁছে গেলে সঞ্জুমনিকে বাড়িতে একা পেয়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে শরীরের নানা জায়গায় কোপাতে থাকে অভিযুক্ত দেওর। ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার একটি হাত এবং পা দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে এবং পরে গলার শ্বাসনালীতে খুন করেন বলে অভিযোগ ওঠে। পরবর্তীতে অভিযুক্ত মতিলাল দাস ধারালো অস্ত্র নিয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন।

পুলিশ সুপার অজয় প্রসাদ জানিয়েছেন , পুরো ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ । অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চাচোল মহকুমা আদালতের মাধ্যমে পুলিশি হেফাজতের আর্জি জানানো হয়েছে।

ছবি —— দেওরের হাতে বৌদি খুনের ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়েছেন মৃতের পরিবার।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *