গৌড়বঙ্গের প্রার্থীদের সমর্থনে নরেন্দ্র মোদীর জনসভা

মঞ্জুরুল আলম,দক্ষিণ দিনাজপুর:– দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় দীর্ঘ ত্রিশ বছর পর কোনো প্রধানমন্ত্রী পা না রাখলেও, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশিহারী ব্লকের নারায়নপুরের মাঠে ১০ নম্বর রাজ্য সড়কের পূর্ব প্রান্তে ৫৫ জন কৃষকের ৪২ একর অর্থাৎ ১২৬ বিঘা জমির উপর পা রাখলেন নরেন্দ্র মোদী। তৃতীয় দফার ভোট আর মাত্র ২ দিন বাকী।

প্রার্থীদের মনের দরজায় যেন কড়া নাড়ছে ভোটের হাতছানি। আর এই তৃতীয় দফা ভোটের আগে গৌড়বঙ্গের প্রার্থীদের জয়ী করার সমর্থনে পাখির চোখ করে আজ জনসভা করে গেলেন নরেন্দ্র মোদী।

তার জনসভা ১০ টার সময় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও, তার সভায় তিনি বক্তব্য শুরু করেন ১০ টা ৩০ মিনিট নাগাদ।বিজেপি নেতাদের সূত্রে খবর, কাল রাতেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সমস্ত বুথ ভিত্তিক পাঁচ জন করে স্বেচ্ছাসেবক গলায় বেচ ঝুলিয়ে শুকনো খাবার ও জলের বোতল নিয়ে সভাস্থলে পৌঁছে যান কয়েক হাজার স্বেচ্ছাসেবক।

এই জনসভায় দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদা জেলার বিভিন্ন ব্লকের কর্মীসমর্থকরা ভোর চারটা থেকেই অটো,ভুটভুটি,টোটো,ট্রাক্টর ও অন্যান্য যানবাহন নিয়ে সভাস্থলে জমায়েত শুরু হয়।

বালুরঘাট বিজেপি প্রার্থী ড.সুকান্ত মজুমদার, ও মালদহের দুই বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে এই জনসভা বলে জানান বালুরঘাট বিজেপি জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার।

সভা শুরুর আগেই মোদীর জনসভা যেন জনজোয়ারে পরিণত হয়েছে। এই জনসভায় আরোও একটি জিনিস লক্ষ্য করা গেছে, কামতাপুরীরাও এই জনসভাকে সফল করতে বিভিন্ন জেলা থেকে ঔ জনসভায় গৌড়বঙ্গ প্রার্থীদের সমর্থনে অংশ গ্রহন করেন। এই জনসভায় আগত কর্মী সমর্থকরা অনেকেই রাস্তা এবং গাছের ডালে উঠে নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্য শোনেন। এই জনসভা ঘিরে ছিলো কঠোর নিরাপত্তা।

এই জনসভার মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বিজেপি প্রার্থী ড.সুকান্ত মজুমদার, বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়,বিজেপির সর্বভারতীয় নেতা মুকুল রায়,রাজ্য সভার সাংসদ রূপা গাঙ্গুলী, মালদহের প্রার্থী খগেণ মূর্মু ও আরোও অনেকে। এই মঞ্চেই নরেন্দ্র মোদীকে গোলায় তরণ পরিয়ে বরণ করে নেন বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত বাবু।

তার বক্তব্যে তিনি জানান, বিজেপির পক্ষে যে ঢেউ উঠছে তা জনসভায় উপস্থিত সংখ্যায় বলে দিচ্ছে। ২৩ শে মে বোঝা যাবে টাকা লুটের ফল।তিনি ফিরদৌস ইস্যুতে তৃণমুলকে এক হাত নিয়ে বলেন, পশ্চিমবঙ্গে তোষণ রাজনীতি চলছে, অন্য দেশ থেকে লোক এনে প্রচার করাচ্ছে তৃণমূল। ভোট ব্যাঙ্ক তৈরি করতে জঙ্গীদের সাহায্য নিতেও আপত্তি নেই তৃণমূলের খাগড়াগড়ের প্রসঙ্গ টেনে এমনিই বিঁধলেন তৃণমূল সরকারকে ও গুন্ডাদের দেওয়ার জন্য পয়সা আছে কিন্তু রাজ্য কর্মচারীদের ডি.এ দেওয়ার পয়সা নেই, এদিনের সভায় এমনিই কটাক্ষ করলেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরোও সুর চড়িয়ে বলেন, রাজ্যবাসী মমতাকে বিশ্বাস করেছিল, কিন্তু উনি জনগনকে ধোঁকা দিয়েছন যেখানে কেন্দ্রীয় সরকার সপ্তম পে কমিশন চালু করেছে এমনকি পাশের রাজ্য ত্রিপুরাতেও বিজেপি সরকার পে কমিশন গঠন করেছে কিন্তু তৃণমূল সরকার পশ্চিমবঙ্গে তা পারলনা।
নরেন্দ্র মোদী তার বক্তব্য শেষে বলেন, ২০২২ সালের মধ্যে সবার মাথার উপর ছাদ থাকবে এবং বালুরঘাটে একটি বিমান বন্দর ও রেল পরিষেবা আরোও উন্নত হবে বলে জেলাবাসীকে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন।
রাজনৈতিক মহলের মতে,নরেন্দ্র মোদীর জনসভার এই জনজোয়ার দেখে শাসক দল তৃণমূল, বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসি প্রার্থীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ। সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভোট প্রচারের শেষ দিনে সম্ভাব্য তৃণমূল প্রার্থীর প্রচারে আসতে পারেন অভিনেতা দেব ও শুভেন্দু অধিকারী।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *