গুড় বাতাসা – নকুল দানা সব দেওয়া হয়ে গেছে, আমাকে নজরবন্দি করে লাভ নেই: অনুব্রত মণ্ডল

বীরভূম: সোমবার ভোট বীরভূমে। কিন্তু ভোটের অনেক আগে থেকেই গরম হতে শুরু করেছে লালমাটির বীরভূম। বলা ভালো, বীরভূম মানেই উঠে আসে অনুব্রত মন্ডলের নাম। জেলার রাজনৈতিক মহল মনে করে, বীরভূমের কেষ্টদার চোখ দিয়েই গোটা জেলাটিকে দেখেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বিরোধীরা বারবার কমিশনের কাছে গিয়ে নালিশ জানিয়েছে যে অনুব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে যদি ব্যবস্থা নেওয়া না হয় তাহলে বীরভূমে অবাধ, শান্তিপূর্ণ ভোট করানো সম্ভব নয়।আর শনিবার কমিশনের কাছে গিয়ে ভোটকর্মীরাই আবেদন জানিয়েছেন যে ভোটের দিন অনুব্রত মন্ডলকে যেন নজরবন্দি করে রাখা হয়।সেইসবে কোন পাত্তাই দিচ্ছেন না অনুব্রতবাবু। উল্টে ভোটের আগের দিনও আত্মবিশ্বাসের সুরে জানালেন, ভোটে জিতে গেছি এখন কত মার্জিনে জিতব সেটাই দেখার। তবু নিজেই জানিয়ে দিলেন, ২০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলেও ৫ থেকে ৬ লাখ ভোটে জিতবে তৃণমূল।বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতির দাবি, “গুড়-বাতাসা, নকুলদানা সব দেওয়া হয়ে গেছে। উন্নয়ন দাঁড়িয়ে থাকবে। আমাকে নজরবন্দি করে লাভ নেই।”এবার ভোট হবে অবাধ-শান্তিপূর্ণ। কিন্তু শুধু নজরবন্দি করা নয়, অনুব্রত মণ্ডলকে ঝাড়খণ্ডে পাঠিয়ে দেওয়াও দাবি জানিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।যদিও সেসবকে জাস্ট পাত্তা দিচ্ছেন অনুব্রত মণ্ডল। তবে নজরবন্দি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বীরভূম জেলা সভাপতি বলেন, আমাকে ভোটের দিন নজরবন্দি করে কোন লাভ নেই।কারণ, আমি ভোটের দিন কোথাও যাই নি। পার্টি অফিসেই থাকি।

দেশ ও এই সময়

24×7 NATIONAL NEWS PORTAL

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *